• শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
মহেশপুরে অমর ২১শে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন জহির রায়হান থিয়েটারের ৩০ বছর পূর্তি আলোচনা সভা, ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠিত সাপাহারে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-অনুষ্ঠিত কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোন কর্তৃক চোরাকারবারি আটক সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন শেরপুরে চাঁদা না পেয়ে মারধর অপহরণ থানায় মামলা কাজিপুরে ৮ টি গাঁজার গাছসহ এক কারবারী গ্রেপ্তার উল্লাপাড়ার মওলানা আব্দুর রশিদ তর্কবাগিশ উচ্চ বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত কাজিপুরে সোনামুখীতে এম মনসুর আলী স্মৃতি ভলিবলের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত রায়গঞ্জের পাঙ্গাসীতে অসহায় ও দুঃস্থ পরিবারের মধ্যে চাউল বিতরন

উল্লাপাড়া থানা এলাকায় রকেট এজেন্টকে গুলিবিদ্ধ করে ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত ৪ জন ডাকাতকে গ্রেফতার

রিপোর্টারঃ / ২৪৩ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত হয়েছেঃ বুধবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২২

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি :
বাংলাদেশ পুলিশ জনগণের জান ও মালের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সর্বদা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। দেশের সংকটকালীন মূহুর্তে জনগণের পাশে দাঁড়াতে বাংলাদেশ পুলিশ কখনো পিছপা হয়না। সেই লক্ষ্যে সিরাজগঞ্জ জেলার পুলিশ হত্যাকান্ড ও দুর্র্ধষ ডাকাতিসহ চাঞ্চল্যকর যেকোন ঘটনায় দ্রুত সাড়া দিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত অপরাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে এসে বিচার নিশ্চিতে সিরাজগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আরিফুর রহমান মন্ডল বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) মহোদয় আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।
ভিকটিম মোঃ তারিকুল ইসলাম মোবারক(৩৮), পিতা-আলহাজ্জ মোঃ জহুরুল ইসলাম মন্টু, সাং-ভেল্লাবাড়ী তেতুলিয়া, থানা-উল্লাপাড়া, জেলা-সিরাজগঞ্জ সে মোবাইল ব্যাংকিং (রকেট এজেন্ট) ব্যবসার সাথে যুক্ত। উল্লাপাড়া থানা শহরকেন্দ্রিক তার ব্যবসা। প্রতিদিন শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে সবার্ধিক ৫/৬ লক্ষাধিক টাকা ক্লাইয়েন্টদের সাথে লেনদেন করেন। ঘটনার দিন ১৬ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিঃ তারিখে আছরের পর মোটরসাইকেলযোগে বাড়ি থেকে বের হয়ে উল্লাপাড়া কাপড়পট্টি ও এইট্টি ফাইভ মার্কেটের বিভিন্ন ক্লাইয়েন্টদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করে এশার আযানের পূর্বে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেন। ভিকটিম মোঃ তারিকুল ইসলাম মোবারক শ্রীকোলা মোড় পার হয়ে চৌকিদহ ব্রীজের কাছে পৌঁছলে পূর্ব থেকেই ভিকটিমের পিছু নেয়া অস্ত্রধারী ডাকাতদল পথরোধ করে ব্যাগে থাকা পাঁচ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। ভিকটিম বাধা দিলে ডাকাতদল প্রথমে ফাঁকা গুলি ছুড়ে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির পর ভিকটিমের বাম পায়ের উড়ুতে গুলি করে টাকাসহ ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় উল্লাপাড়া মডেল থানায় অজ্ঞাতনামা আসামী দিয়ে একটি দস্যুতা মামলা রুজু হয়। চাঞ্চল্যকর এই ডাকাতির ঘটনাটি দেশব্যাপি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়। সিরাজগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আরিফুর রহমান মন্ডল, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) মহোদয় এই দস্যুতার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের সনাক্তে একটি চৌকস টিম গঠন করেন। জনাব মোঃ সামিউল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ক্রাইম এ্যান্ড অপস্), গোয়েন্দা শাখার এই চৌকস টিমকে সার্বিক দিক-নির্দেশনা প্রদান করেন। চৌকস এই টিমের দূরদর্শী কার্যক্রম এবং সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আরিফুর রহমান মন্ডল বিপিএম (বার), পিপিএম (বার) মহোদয় এর নিবিড় তত্বাবধানের কারণে ডাকাতির সাথে জড়িত ব্যক্তিদের সনাক্তপূর্বক গাজীপুর এবং সিরাজগঞ্জ জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় নিদ্রাহীন অভিযান পরিচালনা করে ঘটনায় জড়িত ০৪ জন ডাকাত যথাক্রমে ১। মোঃ সুজন মিয়া ওরফে সোহেল (২৮), পিতা-মোঃ মাজেদ আলী আকন্দ ওরফে মাজম আলী, সাং-গয়হাট্টা ভাগলগাছি ২। মোঃ আঃ করিম (২৮), পিতা-মোঃ ওসমান প্রাং ৩। মোঃ আঃ মালেক (২৭), পিতা-মৃত খালেক মন্ডল ৪। মোঃ আশরাফুল প্রাং(৩৫), পিতা-মৃত ছাইদার প্রাং, সর্বসাং-রামকান্তপুর স্কুলপাড়া, থানা-উল্লাপাড়া, জেলা-সিরাজগঞ্জদের গ্রেফতারসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১। ০১টি বিদেশী রিভলবার ২। ০৬ রাউন্ড গুলি ৩। ০২ টি গুলির খোসা ৪। ০১টি মোটরসাইকেল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। ঘটনার সাথে জড়িত পলাতক ডাকাতদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সিরাজগঞ্জ জেলাধীন বিভিন্ন পয়েন্টে নিয়মিত ডাকাতি/ছিনতাই করাই তাদের পেশা। ঘটনার ৩/৪ দিন আগে সুজনের পরিকল্পনায় ভিকটিম মোবারকের টাকা নেয়ার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বিগত ১৬/১২/২০২২ খ্রিঃ তারিখে গ্যাং লিডার সুজনের নেতৃত্বে ০৭ জনের একটি ডাকাতদল উল্লাপাড়া বাজারে অবস্থান নেয়। শ্রীকোলা মোড়ে সুজন এ্যাপাচি মোটরসাইকেল নিয়ে আরো ০২ জনসহ অবস্থান করছিল এবং উল্লাপাড়া বিজ্ঞানের মোড়ে করিম, আশরাফ ও অজ্ঞাত ০১ জন অবস্থান করছিল। ভিকটিম বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হলে পরিকল্পনা অনুযায়ী ঘটনাস্থলে পৌঁছলে করিম ভিকটিমকে বলে আপনার মোটরসাইকেলে হাওয়া নাই। ভিকটিম মোটরসাইকেলের গতি কমালে সুজনের নেতৃত্বে ডাকাত দলের সদস্যরা তাকে ঘিরে ফেলে আগ্নেয়াস্ত্র দ্বারা প্রথমে ফাঁকা গুলি করে ভীতি প্রদর্শন পরবর্তী ভিকটিমকে গুলি করলে বাম উড়ুতে লাগে এবং আশরাফুল তার হাতে থাকা চাকু দিয়ে ভিকটিমের ব্যাগটি কেঁটে নেয়। পরবর্তীতে সুজন আরো ০১ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে সকলে মিলে মোটরসাইকেলযোগে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এছাড়াও উল্লাপাড়া থানাধীন ভেংড়ী দক্ষিণপাড়াস্থ ধৃত আসামী মোঃ আবু হাসেম(২৬), পিতা-মোঃ আবু বক্কার সিদ্দিক, সাং-ভেংড়ী, থানা-উল্লাপাড়া, জেলা-সিরাজগঞ্জকে গ্রেফতারপূর্বক জিজ্ঞাসাবাদে তার বসতবাড়ির গরুর ঘরের ভিতর হতে ০১ টি ওয়ান শুটারগান অস্ত্র উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। এ সংক্রান্তে অস্ত্র আইনের পৃথক পৃথক ০২টি মামলা রুজু হয়। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে সার্বিক আইনানুগ প্রস্তুতি শেষে বিজ্ঞ আদালতে জমা দেয়া হয়। মিডিয়া ব্রিফে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সহকারী পুলিশ সুপার, ওসি ডিবি, ডিআইও-১সহ ডিবির চৌকস টিমের সদস্যগণ এবং বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ/হ


এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন