• শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
মহেশপুরে অমর ২১শে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন জহির রায়হান থিয়েটারের ৩০ বছর পূর্তি আলোচনা সভা, ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠিত সাপাহারে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-অনুষ্ঠিত কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোন কর্তৃক চোরাকারবারি আটক সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন শেরপুরে চাঁদা না পেয়ে মারধর অপহরণ থানায় মামলা কাজিপুরে ৮ টি গাঁজার গাছসহ এক কারবারী গ্রেপ্তার উল্লাপাড়ার মওলানা আব্দুর রশিদ তর্কবাগিশ উচ্চ বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত কাজিপুরে সোনামুখীতে এম মনসুর আলী স্মৃতি ভলিবলের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত রায়গঞ্জের পাঙ্গাসীতে অসহায় ও দুঃস্থ পরিবারের মধ্যে চাউল বিতরন

কক্সবাজারের ফাহিম ১০৫ দিনে কুরআনের হাফেজ

রিপোর্টারঃ / ৮১ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত হয়েছেঃ সোমবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২৩

মোঃ আবদুল ওয়াদুদ, চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান
কক্সবাজারের আবদুল্লাহ আল ফাহিম মাত্র ১০৫ দিনে পবিত্র কুরআন শরিফ মুখস্থ করেছেন। তার বয়স ৮ বছর ৪ মাস। রোববার সকালে বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় ‘কুরআনের নূর’ আন্তর্জাতিক হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম পর্বের অডিশন দিতে আসেন ফাহিম। বিশ্বরোডের পূর্ব বাকলিয়া (হাফেজ নগর) এলাকার নেয়ামত নূর জামে মসজিদ এবং ইসলামি শিক্ষা কেন্দ্রে ওই উপলক্ষে ক্ষুদে কুরআনের পাখিদের প্রাণের মেলা বসেছে। ফাহিম কক্সবাজারের ঝিলংজার হেদায়েতুন নূর হিফজুল কোরআন সেন্টারের শিক্ষার্থী। ফাহিমের বাবা সেলিম উল্লাহ জাহাঙ্গীর উখিয়ার দুছড়ির একটি মসজিদের ইমাম। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে সবার বড় ফাহিম। ফাহিমের ওস্তাদ হাফেজ মো. শোয়াইবুল ইসলাম সোহেল সাংবাদিকদের বলেন, মাত্র সাড়ে তিন মাসে ৩০ পারা হেফজ করেছেন ফাহিম। তার বাবা মসজিদের ইমাম হওয়ায় মাসে ২ হাজার টাকা খোরাকি নিয়েছি আমরা। ফাহিমের কাছ থেকে এক দিনে আড়াই পারা পর্যন্ত ছবক নিয়েছি। সে খুবই মেধাবী। বড় হয়ে সে ইসলামিক স্কলার হতে চায়। তার জন্য আমি সবার কাছে দোয়া চাই। হাফেজ ফাহিম বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় কুরআন তেলাওয়াতের প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পেরে আমি খুবেই আনন্দিত। উক্ত প্রতিযোগিতার বিচারক বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম শায়খুল হাদিস মুফতি মুহিউদ্দীন কাসেম বলেন,  প্রথমবারের চেয়ে এবার বেশি সাড়া পাচ্ছি। চট্টগ্রাম বিভাগের ৫ জেলার প্রতিযোগীরা অংশ নিচ্ছেন। দুই পর্বে প্রতিযোগিতা হবে। এর মধ্যে ১০ জন ইয়েস কার্ড পাবেন। বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় এই প্রতিযোগিতার পুরস্কার ছাড়াও বিজয়ী, বিজয়ীর পরিবার ও ওস্তাদদের ওমরা হজ রয়েছে। এবারের কুরআনের নূর প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ের প্রথম বিজয়ী পাবেন ১০ লাখ টাকা ও সম্মাননা। দ্বিতীয় বিজয়ী পাবেন সাত লাখ টাকা ও সম্মাননা। তৃতীয় পুরস্কার পাঁচ লাখ টাকা ও সম্মাননা। ওদিকে প্রতিযোগিতার আন্তর্জাতিক পর্যায়ের প্রথম বিজয়ী পাবেন ১৫ লাখ টাকা ও সম্মাননা। দ্বিতীয় বিজয়ী পাবেন ১০ লাখ টাকা ও সম্মাননা এবং তৃতীয় বিজয়ী পাবেন সাত লাখ টাকা ও সম্মাননা।


এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন