• রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সামাজিক কাজে অবদান রাখায় সংবর্র্ধিত হলেন কাজিপুরের সোনামুখী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজিপুরে আনোয়ারা আজাদ ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ কাজিপুরে আনোয়ারা আজাদ ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ বগুড়ায় মাটিডালী যুব ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ শিবগঞ্জে প্রবীণ কল্যাণ ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ সারিয়াকান্দি কুতুবপুর ইউনিয়নে হতদরিদ্রদের মাঝে চাল বিতরণ ধামরাইয়ের কালিয়াগারে জানালা ভাঙা নিয়ে তুমুল ঝগড়া ও সংঘর্ষ উপস্থাপনায় সেরা হওয়ার লড়াইয়ে বগুড়ার তামান্না খন্দকার ঈদ উপহার পেলেন কাজিপুরের ১৪শ দুস্থ পরিবার মোহাম্মদ নাসিমের জন্মদিনে কোরান শরিফ বিতরণ করলেন এমপি জয়

`স্মার্ট কাজিপুর’ গড়তে ইউএনও সুখময় সরকার এর সৃষ্টি নতুন দিগন্তের উন্মোচন করবে…

রিপোর্টারঃ / ২৬৪ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশিত হয়েছেঃ সোমবার, ১৪ আগস্ট, ২০২৩

আবদুল জলিলঃ সৃষ্টির সেই আদিকাল থেকে মানুষ তার নিজের প্রয়োজনে দিনের পর দিন অপর মানুষের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে। মানুষের আদিম জীবনের পরিবর্তনে এই মানুষই যুগ যুগ ধরে কাজ করে যাচ্ছেন। তারই পথ ধরে আগুন আবিস্কার, পাথরের ব্যবহার, চাষাবাদ, মৎস্য আহরণ থেকে অনেক আবিস্কারের পথ ধরে যখন বিদ্যুতের আলোয় চারদিক আলোকিত হলো সেদিন যেন মানুষের জীবনের নতুন অধ্যায়ের শুরু হলো। ঠিক তেমনি করে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ সরকার ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশের উন্নয়নের ডিজিটে অনেকগুলো সংখ্যা যেমন যোগ হয়েছে তেমনি সংযোজনের নানা মাত্রিকতায় সেই সমৃদ্ধির সুগন্ধ দেশের গন্ডি পেরিয়ে অনেক দেশেই তার হাওয়া লেগেছে। বিশেষ করে প্রযুক্তিগত উন্নয়নের সুফল পাচ্ছে দেশ। নানাক্ষেত্রে সৃষ্টি হয়েছে নানা নতুন নতুন উপায়। তারই পথ ধরে সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলায় চালু হয়েছে ইউনিয়ন পর্যায়ের তৃণমূল মানুষদের কাজ নিয়ে দিনের পর দিন উপজেলা শহরে এসে কর্মকর্তাদের কাছে ধরনা দেবার বিকল্প একটি প্রযুক্তি। একটি সাইট লগইন করলেই কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলা, নিজের সমস্যার বিষয়ে আলোচনা করা, এমনকি নিজের সুবিধামতো সময় নির্বাচন করে কথা বলা ও নিজের কাজটি করার কাজটি করতে পারবেন যেকোন ব্যক্তি। সেইসাথে তিনি ইচ্ছে করলে নিজের বাড়ি থেকে নির্দিষ্ট ওই সাইটটিতে লগইন করেও এই সেবা পেতে পারেন। সেইসাথে গ্রামীণ শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অবসরপ্রাপ্ত মানুষজন, কিংবা বই পড়ার ইচ্ছে আছে অথচ সেই সুযোগ নেই তাদের জন্যে ব্যবস্থা রাখা হয়েছে এই কর্মযজ্ঞে। আর এসব কর্মকান্ডের রূপকার কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুখময় সরকার্। সম্প্রতি তিনি একটি সাইট তৈরি করেছেন যেখানে লগইনের মাধ্যমে দেশের যেকোন নাগরিক এই সেবা পেতে পারেন। এই বিষয়টি একেবারে গ্রামের মানুষের কাছে নিয়ে যেতে তিনি স্থান হিসেবে বেছে নিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদকে। সেখানকার একটি কক্ষে এসব সেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই প্রকল্পের নাম দেয়া হয়েছে-

“জয়বাংলা ইউনিয়ন স্মার্ট সেন্টার”। সম্প্রতি কাজিপুর সদর ইউনিয়নে এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়, মাননীয় সংসদ সদস্য, ৬২ সিরাজগঞ্জ-০১। উদ্বোধনের সময় এই প্রকল্পের কর্মপরিধি ও নানামুখী সেবার কথা জানতে পেরে গভীর সন্তুষ্ঠির কথা জানিয়েছেন তিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশ” গড়ার ঘোষণাকে বাস্তবায়নের এই মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, এই সেবা গ্রামের সাধারণ মানুষদের সবচেয়ে বেশি কাজে আসবে। তারা নিজেদের সময় ও অর্থ সাশ্রয় করে কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করে নিজের কাজ করতে পারবে-এটা খুবই চমৎকার একটি ব্যবস্থা। এমন উদ্যোগকে দেশের একমাত্র উপজেলা হিসেবে কাজিপুর থেকে উদ্ভাবন এবং শুরু হওয়ার আনন্দের ভাগীদার হতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত। আমি বিষয়টি নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলবো। এটি টেকসই হলে এই প্রকল্পের আমরা হবো মাদার অর্গানাইজার এন্ড ইনভেন্টর। ইউএনও সুখময় সরকার এবং তার যোগ্য সহযোগী সহকারি কমিশনার(ভূমি) মহোদয়কে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় সুধীসমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ, ছাত্র – ছাত্রীবৃন্দ, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগের সেই সেবা প্রকল্পটির ঠিকানা হচ্ছে www.smartkazipur.info । এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ও ইউনিয়ন পর্যায়ে জয় বাংলা স্মার্ট সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে যমুনার চরাঞ্চলে স্মার্ট জনপদে পরিণত হচ্ছে কাজিপুর উপজেলা। প্রতিটি জয় বাংলা ইউনিয়ন স্মার্ট সেন্টারে রয়েছে- ১০০ টি বই সংবলিত মিনি লাইব্রেরী, বই পড়ার জন্য একটি টেবিল ও ৬টি চেয়ার, ইন্টারনেট সংযোগ ও ভিডিও কনফারেন্সিং সুবিধাসহ একটি ডেক্সটপ কম্পিউটার, ফ্রি ওয়াই ফাই জোন, বঙ্গবন্ধু কর্ণার, মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার, উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ কর্ণার। স্মার্ট কাজিপুর প্রকল্পের অন্যতম একটি নাগরিক সুবিধা ‘বন্ধন (Meet the officers virtually)’। এই সুবিধা গ্রহণ করে নাগরিকগণ তাদের সমস্যার বিষয়ে কাজিপুর উপজেলার সরকারি কর্মকর্তাগণের সাথে বাংলাদেশের যেকোন প্রান্ত হতে ভিডিও কনফারেন্সিং করতে পারবেন। এজন্য আগ্রহী সেবাগ্রহীতাকে www.smartkazipur.info ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে নিবন্ধন ও সময় নির্ধারণ করতে হবে। সেবাপ্রার্থী তার সুবিধামত যেকোন ল্যাপটপ কিংবা ডিজিটাল মোবাইল হতে ভিডিও কনফারেন্সিং এ যুক্ত হতে পারবেন। যার ল্যাপটপ কিংবা ডিজিটাল মোবাইল নাই তিনি তার নিকটবর্তী জয় বাংলা ইউনিয়ন স্মার্ট সেন্টারে সংরক্ষিত কম্পিউটার হতে যুক্ত হতে পারবেন। জয় বাংলা ইউনিয়ন স্মার্ট সেন্টারে সংরক্ষিত কম্পিউটারে ভিডিও কনফারেন্সিং সুবিধা রয়েছে।সভায় মূল প্রবন্ধে এসব বিষয় উপস্থাপন করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ অনিক ইসলাম।

 

বিষয়টি সম্পর্কে বিশদ বর্ণনা দিয়ে ইউএনও সুখময় জানান,  ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘দেশকে ‘স্মার্ট বাংলাদেশে’ পরিণত করার প্রধান হাতিয়ার হবে ডিজিটাল সংযোগ। স্মার্ট নাগরিক, স্মার্ট অর্থনীতি, স্মার্ট সরকার এবং স্মার্ট সমাজের জন্য ডিজিটাল সংযোগ মূল ভিত্তি হিসেবে কাজ করবে।’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন, কাজিপুর, সিরাজগঞ্জের একটি ইনোভেটিভ উদ্যোগ “স্মার্ট কাজিপুর”। এ উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক স্মার্ট নাগরিক ও স্মার্ট সমাজ গঠনে প্রতিটি ইউনিয়নে জয় বাংলা ইউনিয়ন স্মার্ট সেন্টার স্থাপন করা হচ্ছে। স্মার্ট সরকার প্রতিষ্ঠায় সরকারি সেবা সহজীকরণে টাইম, কস্ট ও ভিজিট কমানোর অভিপ্রায়ে ‘বন্ধন ভিডিও কনফারেন্সিং’ এর মাধ্যমে নাগরিকগণের দোরগোড়ায় জনসেবায় জনপ্রশাসন নিশ্চিত করা হচ্ছে। পাশাপাশি প্রযুক্তিতে দক্ষ জনবল গঠনে আউটসোর্সিং ট্রেনিং প্রদান করে দুর্গম চরাঞ্চলে দক্ষ জনবল গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে যার মাধ্যমে স্মার্ট অর্থনীতি নিশ্চিত হবে। এভাবেই স্মার্ট জনপদে পরিণত হচ্ছে সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলা।  প্রথম পর্যায়ে কাজিপুরের ছয়টি ইউনিয়নে একযোগে এই সেবা চালু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে আরও ছয় ইউনিয়নে এই সেবা চালু করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন,এই প্রকল্পের সফলতার জন্যে উপজেলা ও ইউনিয়নে এ সংক্রান্ত দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে যারা এই কাজের বিষয়ে দেখভাল করবেন মতামত গ্রহণ ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।

প্রযুক্তিময় বর্তমান পৃথিবীর এগিয়ে চলার বাহনও প্রযুক্তিই। তাই একেবারে উপজেলা পর্যায়ের এই সৃষ্টি যা কিনা ইউনিয়ন পর্যায়ের মানুষ তার উপকারভোগ করবেন –এমন প্রকল্প শুধু দেশেই নয় বিশ্বের অনেক দেশেই এমনটি খুব বেশি নেই। এই প্রযুক্তির ছোঁয়ায় বদলে যাবে কাজিপুরের তৃণমূলের সহজ সরল মানুষের জীবনমান, সমৃদ্ধ হবে তাদের আগামীর পথচলা। সেই চলায় সেবার সহজীকরণে গৃহিত এই প্রযুক্তি কাজিপুরের সীমানা পেরিয়ে দেশের সব ইউনিয়নে একদিন ছড়িয়ে পড়বে-এমন আশাবাদ ব্যক্ত করাই যায়। #

 


এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন